ঢাবি ভর্তি পরীক্ষায় বিভাগ পরিবর্তনের নিয়মাবলি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় পুনর্গঠিত ৪টি ইউনিট (কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিট, বিজ্ঞান ইউনিট, ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিট এবং চারুকলা ইউনিটে) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এ ক্ষেত্রে বিভাগ পরিবর্তনের জন্য একজন শিক্ষার্থী তিন ইউনিটেই পরীক্ষা দিতে পারবেন। অন্যদিকে, চারুকলা ইউনিটে আগের মতোই ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এক্ষেত্রে মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষার কেউ বিজ্ঞান ইউনিটে ভর্তি হতে চাইলে তিনি সে ইউনিটে আরেকবার আবেদন করবেন। এ ক্ষেত্রে বাংলা, ইংরেজি ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে আবশ্যিক এবং এইচএসসিতে অতিরিক্ত অর্থনীতি, ভূগোল, গণিত, পরিসংখ্যান, মনোবিজ্ঞান-এর যেকোনো একটি বিষয়ের উত্তর করতে হবে। প্রত্যেক বিষয়ে এমসিকিউতে ১৫ নম্বর এবং লিখিত ১০ নম্বর থাকবে। উচ্চ মাধ্যমিকে বাংলা না থাকলে এডভান্স ইংলিশে পরীক্ষা দেবেন।

একই নিয়মে বিজ্ঞান ও মানবিক বিভাগ থেকে ব্যবসায় ইউনিটে আবেদনকারীরা বাংলা, ইংরেজি এবং ‘হিসাববিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি’ বিষয়ে আবশ্যিক পরীক্ষা দেবেন। প্রত্যেক বিষয়ে ১২ নম্বর থাকবে এবং গণিত বা পরিসংখ্যান বা অর্থনীতি-যেকোনো একটি বিষয়ের উত্তর দিতে হবে যাতে এমসিকিউতে নম্বর থাকবে ৩৪। এছাড়া লিখিত প্রত্যেক বিষয়ে ১০ নম্বর করে থাকবে।

‘কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান’ ইউনিটের পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী মানবিক এবং বিভাগ পরিবর্তনে ইচ্ছুক বিজ্ঞান ও ব্যবসায় বিভাগের শিক্ষার্থীসহ সবাই অভিন্ন প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দেবে। এক্ষেত্রে এমসিকিউতে বাংলায় ১৫, ইংরেজিতে ১৫ এবং সাধারণ জ্ঞানে ৩০ থাকবে। লিখিত অংশে বাংলায় ২০, ইংরেজিতে লিখিত ২০ থাকবে। বিদেশীরা বাংলার পরিবর্তে অ্যাডভান্সড ইংলিশের উত্তর করবে।

গত ১২ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ ভর্তি পরীক্ষার কমিটির সভায় এ সব সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। আজ সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এ বিষয় চূড়ান্ত করা হয়।

এবার সমন্বয়ক থাকবেন বিজ্ঞান ইউনিটে আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সাইন্স অনুষদের ডিন অধ্যাপক মো. জিল্লুর রহমান, কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটে কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আব্দুল বাছির, ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিটে ডিন অধ্যাপক ড. মুহাম্মাদ আব্দুল মঈন, চারুকলা ইউনিটে অধ্যাপক নিসার উদ্দিন।

এছাড়াও এবারের ভর্তি পরীক্ষায় পরিচয়পত্র সাপেক্ষে ট্রান্সজেন্ডার এবং হিজড়া সম্প্রদায়কে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তাদেরকে বিদ্যমান কোটা খালি থাকা সাপেক্ষে কোটা সুবিধা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

‘কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৬ মে, বিজ্ঞান ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ১২ মে, ‘ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ১৩ মে, এবং চারুকলা ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা (সাধারণ জ্ঞান ও অংকন) ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা সকাল ১১ টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২ টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। ‘চারুকলা ইউনিট’ ব্যতীত অন্য ৩টি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ঢাকাসহ ৮টি বিভাগীয় শহরে অনুষ্ঠিত হবে।

সব ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় ৬০ নম্বরের এমসিকিউ এবং ৪০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা হবে। শুধুমাত্র চারুকলা ইউনিটে ৪০ নম্বরের এমসিকিউ এবং ৬০ নম্বরের অংকন পরীক্ষা হবে। ভর্তি পরীক্ষায় মোট ১২০ নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে।

ফার্মেসি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সীতেশ চন্দ্র বাছার বলেন, ভর্তি পরীক্ষার বিষয়টি একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় চূড়ান্ত করা হয়েছে। এ ছাড়াও প্লেজিয়ারিজম নীতিমালা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে এবং কোনো বিষয়ে অসামঞ্জস্য থাকলে দুই সপ্তাহের মধ্যে জানাতে বলা হয়েছে। এটি সিন্ডিকেট সভায় চূড়ান্ত করা হবে।

Eadmin

Related post